[Slideshow "home" not found]

রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজে স্বাগতম

রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজ পরিচিতি:

হযরত শাহ্ মখদুম রুপোশ (রঃ)- এর স্মৃতি বিজড়িত পূণ্যভূমিতে বৈচিত্র্যময় বৃক্ষরাজিশোভিত সুশীতল ছায়াসুনিবিড় পরিবেশে অবস্থিত রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজ রাজশাহী জেলার মেয়েদের জন্য একমাত্র সরকারি উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ঔপনিবেশিক আমল থেকেই রাজশাহী শিক্ষা নগরী হিসেবে পরিচিত হলেও এখানে স্বতন্ত্র কোনো মহিলা কলেজ ছিল না। তাই নারীদের আত্মপ্রতিষ্ঠা ও নারীশিক্ষা প্রসারের জন্য রাজশাহী-র কয়েকজন বিদ্যোৎসাহী ব্যক্তির উদ্যোগে ও জনসাধারণের আর্থিক সহায়তায় ১৯৬২ সালের ২৪ এপ্রিল নগরীর কাদিরগঞ্জ মহল্লার অন্তর্গত তারিনী বাবুর বাগান নামে পরিচিত বৃক্ষরাজি শোভিত প্রায় দশ একরের একটি মনোরম ভূখন্ডে রাজশাহী মহিলা কলেজ প্রতিষ্ঠা হয়। প্রতিষ্ঠাকালীন বদলি সনদের মাধ্যমে ভর্তিকৃত পঁচিশ জন ছাত্রী নিয়ে এই কলেজের যাত্রা শুরু হয়। প্রথম থেকেই শিক্ষা, সাহিত্য-সংস্কৃতি, ক্রীড়া ইত্যাদি ক্ষেত্রে ছাত্রীদের অসাধারণ সাফল্যের ফলে এই কলেজের প্রতি ছাত্রী ও অভিভাবকদের আগ্রহ বৃদ্ধি পায়। ষাটের দশকের মাঝামাঝি তৎকালীন সরকার প্রতিটি জেলায় একটি করে মহিলা কলেজ স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিলে ১৯৬৮ সালের ২৫ এপ্রিল সেই পরিকল্পনার আওতায় এই কলেজটির সরকারিকরণ প্রক্রিয়া স¤পন্ন হয়। কলেজটিতে বাংলা, ইংরেজি, অর্থনীতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, ইসালামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিষয়ে অনার্স ও মাস্টার্স, ইতিহাস, ভূগোল ও পরিবেশ, দর্শন, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, গণিত, প্রাণিবিজ্ঞান, উদ্ভিদবিজ্ঞান এবং গার্হস্থ্য অর্থনীতি বিষয়ে অনার্স কোর্স; বিএ, বিএসএস, বিএসসি ডিগ্রি (পাস) এবং উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা চালু রয়েছে।

কলেজে সর্বমোট ১৯টি বিভাগ রয়েছে। এখানে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের দক্ষ, অভিজ্ঞ ও কর্মঠ শিক্ষকমন্ডলী রয়েছেন যাঁদের মধ্যে কয়েকজন এম.ফিল. ও পিএইচ.ডি. ডিগ্রিধারী। এই কলেজের প্রাক্তন ছাত্রীদের মধ্যে অনেকেই শিক্ষাবিভাগসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কর্মক্ষেত্রে নিয়োজিত ছিলেন ও বর্তমানেও আছেন। এদের মধ্যে উপমহাদেশের প্রখ্যাত কথা সাহিত্যিক সেলিনা হোসেন অন্যতম।

ভৌত অবকাঠামো: কলেজে তিনতলা বিশিষ্ট একটি প্রশাসন ভবন রয়েছে। ঐ একই আকৃতির আরও দুটি তিনতলা ভবনে একাডেমিক কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে স¤পন্ন হচ্ছে। ছাত্রীদের জন্য কমনরুম, ক্রীড়াকক্ষ, বিএনসিসি, রোভার ডেন, নামাজঘর, মিলনায়তন ও ক্যান্টিন রয়েছে। তাছাড়া ইন্টারনেট সুবিধা সম্বলিত কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি রয়েছে যাতে বই ও জার্নালের পর্যাপ্ত সংগ্রহ আছে। দূর হতে আগত মেধাবী ছাত্রীদের আবাসনের জন্য রয়েছে দুটি ভবনবিশিষ্ট একটি ছাত্রী হোস্টেল। এছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক প্রতিশ্রæত ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট একটি ছয় তলা হোস্টেল নির্মাণাধীন রয়েছে। Read More…